কবিতা- প্রেম প্রত‍্যাখান

কবি সুমনা বেসরা

কতবার তুমি বলেছো

আমার হাতে হাত রেখো

চলো এক  সাথে

ঐ দূর পাহাড়ের কোলে

নির্জনে গল্প করি।

কিংবা সাইকেল নিয়ে

মন্থর গতির প‍্যাডেলে

কোন এক নদীর পাড়ে।

আমি ইচ্ছে করেই যাইনি

হয়তো ঐভাবে ভাবিনি

ক্লাস – লাইব্রেরি – টিউশন

এগুলোই খুব দরকারি ছিল।

জানতাম না তোমার 

মনখারাপ আমাকে চাইত।

কারণ আমি ভাবিনি সেভাবে।

বরং 

অন‍্য কেউ স্বপ্নে ভাসত।

সেদিন কিছু দেবে বলে

তুমি ডাকলে

কষ্ট করে আমার মেসের সামনে এসে,

ইচ্ছে করেই ফিরিয়ে দিলাম

চাইনি কেউ দেখুকতোমার সাথে।

জানালা থেকে দেখলাম 

মলিন মুখে ফিরে যেতে।

তুমি নিরাস হওনি

ফোনে জেনেছ আমি কেমন আছি ।

বিয়ের আগে পর্যন্ত 

আমার মত চেয়েছ

সত্যি সেভাবে ভেবেছি কিনা

জানতে চেয়েছ।

আমার তো ভাবার কিছু ছিলনা

আমি তো  ভাবিনি কিছু একবারও 

তবে কেন এ প্রশ্ন আমায়?

সেদিন 

মন খারাপ করে

শুয়ে আছি

জানালায় দূর পাহাড়ে তাকিয়ে 

বালিশ ভেজাচ্ছি,

হঠাৎ ফেসবুকের মেসেঞ্জারে 

সেই “তুমি”” কেমন আছো?  “

জানি আমি

দিন দিন খিটখিটে হয়ে গেছি

ভালো লাগেনা কিছু

নিরস কর্মব‍্যস্ত

দাম্পত্য জটিলতা,

মিস করি আজ

তোমার সরলতা।

তবু লিখলাম” আছি….বেশ……ভালো”।

“তুমি…?”