Monthly Archives: August 2020

কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মী নিয়োগের নতুন নীতি

কেন্দ্রীয় সরকারের ক্যাবিনেট বৈঠকে পাশ হয়ে গেল কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মী নিয়োগের পরীক্ষাগুলোকে এক ছাতার তলায় আনার সিদ্ধান্ত।

দেখে নেওয়া যাক এই সিদ্ধান্তের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট:-

১. কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত নন-গেজেটেড অর্থাৎ গ্রুপ বি ও সি (নন-টেকনিক্যাল) এর কর্মী নিয়োগ করা হবে কমন এন্ট্রান্স টেস্ট (CET) এর মাধ্যমে। এই পরীক্ষা পরিচালনা করবে ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি (NRA)। 3 লেভেল এর জন্য অর্থাৎ মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক এবং স্নাতক স্তরের চাকরি পরীক্ষা গুলির জন্য আলাদা আলাদা ‘কমন এন্ট্রান্স টেস্ট’ অনুষ্ঠিত হবে।

২. বর্তমানে প্রায় 20টি সরকারী রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন বিভাগের কর্মী নিয়োগ করা হয়। কতগুলো এজেন্সি আর থাকছে না সেগুলোর একত্রীকরণ করেই গঠিত হচ্ছে ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি।

3. আপাতত রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড(RRB), ইনস্টিটিউট অফ ব্যাংকিং পার্সোনাল সিলেকশন(IBPS), স্টাফ সিলেকশন কমিশন(SSC) অর্থাৎ রেল, ব্যাংক ও এসএসসির নিয়োগের ক্ষেত্রে অভিন্ন পরীক্ষা হবে। পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে সমস্ত কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়োগ এই অভিন্ন পরীক্ষার দ্বারাই হবে।

4. আগে বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন রকমের সিলেবাস পড়তে হতো। এবার থেকে সিলেবাসে একই হবে।

5. মাতৃভাষা তে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ মিলবে। পরীক্ষা হবে 12 টি ভাষায়। ভাষার সংখ্যা আরো বাড়ানো হবে পরবর্তীকালে।

6. আগে বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন ফর্ম ফিলাপ করতে হতো, এবার সেটা একটা ফর্ম ফিলাপ এর মাধ্যমে হয়ে যাবে। ফলে গরীব ও দুঃস্থ চাকরিপ্রার্থীদের অর্থনৈতিক চাপ কমবে।

7. বয়সের ন্যূনতম ও সর্বোচ্চ সীমা এক থাকবে। বয়স সীমার মধ্যে তুমি যতবার ইচ্ছা পরীক্ষা দিতে পারবে। SC ও ST দের জন্য বয়সের উর্ধ্বসীমা আর থাকবে না।

8. আগে বিভিন্ন পরীক্ষার জন্য অনেক পরীক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে অনেক দূরে যেতে হতো। এবার দেশের প্রতিটা জেলায় পরীক্ষা কেন্দ্র রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর ফলে প্রান্তিক এবং মহিলা পরীক্ষার্থীরা বিশেষভাবে সুবিধা পাবে।

9. পরীক্ষা বিভিন্ন ধাপে হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা বা Tier 1 এ অভিন্ন পরীক্ষা হবে এবং সেটি অনলাইনে হবে। Tier 2 থেকে বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষা আলাদা আলাদা হবে।

10. একবার পরীক্ষা দিলে সেই রেজাল্ট 3 বছর পর্যন্ত বৈধ থাকবে। তবে একবার পরীক্ষা দেওয়ার পর আবার পরীক্ষা দিয়ে রেজাল্ট আরও ভালো করবার সুযোগ থাকবে।

11. প্রথমে বছরে দুবার করে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তীকালে বছরে পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানো হবে।

12. ন্যাশনাল রিক্রুটমেন্ট এজেন্সি Societies Act এর under‌ এ একটি স্ব-শাসিত সংস্থা হবে। এবং 2021 সাল থেকেই এই নতুন পদ্ধতিতে নিয়োগ শুরু করে দিতে চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার।

এই নতুন সিদ্ধান্তটি যে বৈপ্লবিক তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এর ফলে সারাদেশের বহু চাকরিপ্রার্থীর সুবিধা হবে কারণ এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়ার সরলীকরণ এবং সুযোগ বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং বিশেষত অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল এবং মহিলা এবং প্রান্তিক চাকরিপ্রার্থীদের সুবিধা বৃদ্ধির প্রচেষ্টা হয়েছে।

ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱ ᱚᱠᱛᱚ

-ᱫᱟᱥᱚᱨᱚᱛᱷᱤ ᱢᱟᱹᱡᱷᱤ

ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱ ᱚᱠᱛᱚ
ᱡᱩᱢᱤᱫ ᱛᱤ ᱛᱩᱞ ᱨᱮᱱᱟᱜ,
ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱ ᱚᱠᱛᱚ
ᱥᱟᱯᱟᱵ ᱥᱟᱵ ᱠᱟᱛᱮᱫ ᱵᱟᱹᱭᱨᱤ ᱞᱟᱜᱟ ᱨᱮᱱᱟᱜ᱿

ᱠᱩᱢᱲᱩᱭᱮᱱᱟ ᱦᱟᱥᱟ ᱠᱷᱚᱱ ᱵᱟᱥᱟ
ᱱᱟᱹᱭ ᱠᱷᱚᱱ ᱫᱟᱜ ᱜᱤᱛᱤᱞ
ᱚᱛ ᱠᱷᱚᱱ ᱯᱟᱹᱴᱩᱵ ᱩᱰᱩᱠ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱥᱚᱱᱟ
ᱵᱤᱨᱵᱩᱨᱩ ᱠᱷᱚᱱ ᱥᱤᱲᱳ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱥᱤᱨᱡᱚᱱ ᱫᱩᱨᱤᱵᱽ᱿

ᱫᱷᱟᱠᱞᱟᱣ ᱚᱪᱚᱜᱮᱫ ᱵᱚᱱᱟᱠᱚ
ᱜᱤᱨᱟᱹᱵᱟᱹᱥᱤ ᱦᱚᱲ ᱦᱚᱸ
ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱᱟ ᱚᱠᱛᱚ ᱜᱟᱨᱡᱟᱜ ᱨᱮᱱᱟᱜ
ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱᱟ ᱚᱠᱛᱚ ᱞᱟᱹᱲᱦᱟᱹᱭ ᱨᱮᱱᱟᱜ᱿

ᱠᱷᱟᱢᱪᱟᱣ ᱦᱟᱛᱟᱣ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱯᱟᱹᱨᱥᱤ, ᱞᱟᱠᱪᱟᱨ
ᱨᱮᱡ ᱦᱟᱛᱟᱣ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱦᱚᱠ ᱟᱹᱭᱫᱟᱹᱨ
ᱞᱩᱴᱩᱡ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱢᱟᱹᱭ ᱛᱟᱠᱚᱣᱟᱜ ᱤᱡᱡᱚᱛ
ᱥᱮᱸᱜᱮᱞ ᱠᱚ ᱡᱩᱸᱰᱤᱭᱟᱫᱟ ᱥᱩᱠᱷᱟᱹᱞ ᱥᱟᱶᱛᱟᱨᱮ
ᱟᱵᱚᱣᱟᱜ ᱛᱟᱨᱮᱱ ᱨᱮ ᱵᱟᱹᱱᱫᱩᱠ ᱫᱚᱦᱚ ᱠᱟᱛᱮᱫ
ᱚᱞ ᱠᱮᱫᱟᱠᱚ ᱟᱠᱚᱣᱟᱜ ᱱᱟᱜᱟᱢ
ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱᱟ ᱚᱠᱛᱚ ᱵᱚᱦᱚᱜ ᱛᱩᱞ ᱨᱮᱱᱟᱜ
ᱱᱤᱛᱚᱜ ᱥᱮᱴᱮᱨᱟᱠᱟᱱᱟ ᱚᱠᱛᱚ ᱥᱮᱸᱜᱮᱞ ᱥᱟᱨ ᱨᱮᱱᱟᱜ᱿