১২00 কিলোমিটার স্কুটার চালিয়ে গর্ভবতী স্ত্রীকে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছালেন স্বামী

স্বামী ক্লাস এইট প্লাস। তিনি একটা ক্যাটারিং এ রান্নার কাজ করেন। তার স্ত্রী ২০১৯ সাল থেকে Madhya Pradesh board of secondary education এর অধীনে ডি. এল. এড. এর লেখাপড়া করছেন। পরীক্ষার সিট পড়েছে বাড়ি ঝাড়খণ্ডের গোড্ডা শহর থেকে ১২০০ কিলোমিটার দূরে মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রে। স্বামী চান, তিনি লেখাপড়া শিখতে পারেননি কিন্তু স্ত্রী যেন পরীক্ষায় পাশ করে বিদ্যালয় শিক্ষিকা হতে পারেন।





এসব জিনিস তো সিনেমায় হয়! স্ত্রী গর্ভবতী। যান চলাচল প্রায় নেই বললেই চলে! কিন্তু কিকরে যাবেন পরীক্ষা দিতে? স্ত্রী দ্বিধাগ্রস্ত, গর্ভবতী অবস্থায় কি এতটা দূরত্ব যাওয়া উচিত! কিন্তু স্বামী চান না, পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছাতে না পারার কারণে স্ত্রীর কোনো শিক্ষাবর্ষ নষ্ট হোক! স্বামী স্ত্রী নিজেদের গহনা বের করে মর্টগেজ দিলেন, দশ হাজার টাকার বেশী এল না! কি করে ভাড়া করবেন গাড়ি? পরীক্ষা দিতে গিয়ে থাকার ব্যবস্থা করবেন কিভাবে?, স্ত্রীর মাথায় হাত! এসব জিনিস শুধু সিনেমাতেই হয়!





২৮ আগস্ট ২০২০ তারিখে স্বামী বের করলেন শিবরাত্রির সলতে — পুরানো স্কুটার। স্ত্রীকে বললেন, চল। স্ত্রী “ভগবানের ভরসায়” চেপে বসলেন দ্বিচক্রযানে। স্বামীকে জড়িয়ে। পথে এবড়োখেবড়ো রাস্তা। তার ওপরে প্রবল বৃষ্টি! একটাই রেনকোট! স্বামী স্ত্রী একটা গাছের তলায় আশ্রয় নিলেন। আড়াই ঘন্টা ধরে। বৃষ্টিস্নাত, তবু যাত্রা থামালেন না। মাঝে কোথাও একটা হোটেলে আশ্রয়, কোথাও আবার পেট্রোল পাম্পে রাত কাটানো…..সব শেষে দুই দিন পরে ৩০ তারিখে পরীক্ষাকেন্দ্রে এসে পৌঁছলেন স্বামী স্ত্রী। সুস্থ শরীরে।





আলট্রাসাউন্ড করে দেখা গেছে গর্ভস্থ সন্তানও সুস্থ আছে। এসব জিনিস বোধহয় সিনেমাতেই হয়! এবার লক্ষ্য শুধু সফল ভাবে পরীক্ষা দেওয়ার। স্বামী লকডাউনে দীর্ঘদিন কাজহারা। তিনি চান, স্ত্রী চান নিজের যোগ্যতায় দ্রুত আত্মনির্ভর হয়ে ওঠে। স্ত্রীর প্রিয়জন বলতে সেভাবে কেউ নেই! তিনি স্বামীর সাহসিকতায় অবাক। এত দুর্যোগ সহ্য স্ত্রীর জন্য ক’জন স্বামী করে, তাও স্ত্রীকে স্বনির্ভর করতে! স্বামীর প্রতি ভালোবাসা কৃতজ্ঞতা ঝরে পড়ছে স্ত্রীর চোখেমুখে, কথাবার্তায়। এরকম জিনিস কি শুধু তাহলে সিনেমাতেই হয়? না, এরকম ঘটনা বাস্তবেও ঘটে। কঠোর বাস্তবের মাটিতে দাঁড়িয়ে ধনঞ্জয় মাঝি এবং সোনালি হেমব্রম দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন যে জীবনে আত্মপ্রতিষ্ঠার তাগিদ থাকলে স্বামী স্ত্রী একসাথে কতটা পথ অতিক্রম করতে পারে! কতটা ঝঞ্ঝা অতিক্রম করতে পারে! এবং সবশেষে সফল হতে পারে।





পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর মধ্যপ্রদেশ থেকে ঝাড়খণ্ড ফিরে আসার জন্য এক কর্পোরেট সংস্থার সহযোগিতায় বিমানের টিকিটের বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়েছে এবং ওনারা ১৬ সেপ্টেম্বর ঝাড়খন্ডে ফিরে আসবেন।