কবি লক্ষণ কিস্কুর একজোড়া কবিতা






জীবন তরী – লক্ষণ কিস্কু

কোন অজানা মাঝি
ভাঁসিয়ে দিলে তরী
নতুন গাঙে
সকাল কিংবা সাঁঝে।

ভেঁসে ভেঁসে যায় তরী
অজানা পথে
হিন্দোলিত হয়ে সারি সারি
নীল আকাশে পেঁজা তুলোর মতো
দিগন্ত থেকে দিগন্তে ভেঁসে চলে কত!

দেখে যায় নয়ন মেলে
রেখে যায় হৃদয়ের উজাড় করে
তাকায় না তো আর —
ফেলে আসা ঘাটে
কত কী যে বেচাকেনা
করেছে জীবনের হাটে।
দীপ খানি নিভীয়ে
নীলিন হয়ে যায় —
ঐ পরপারে
শান্তিগড়ে।।






দিশারী – লক্ষণ কিস্কু

তোমার চোখের জল অন্ধ আজি
ব্যথা ভরা বুক, ঝরা ফুল সাজি,
তুমি আরো জানো ফিরে
উদিত সূর্যের বার্তা ঘিরে।

খোল তব তোমার মুদিত নয়ন
একাকীত্ব ফেলে সাথী সাথে গমন
পাবে নতুন পথের দিশারী
ঘুচিবে মনের সব বিভাবরী।

আমাদের জানা পাহাড় ঘেরা দেশ
সুন্দর শান্তিনীড়– নেই কোন শেষ।
বিভেদ রহস্য ধীরে চলে পরাভবে
দু:খ বহে — বুঝব আমরা কবে?