Category Archives: অনুগল্প

শকুনের বাচ্চা মন ভরে খেল মানুষের মাংস

এক শকুনের বাচ্চা তার বাপের কাছে বায়না ধরলো, — “বাবা, আমি মানুষের মাংস খাব! “

শকুন বলল–“ঠিক আছে বেটা, সন্ধ্যার সময় এনে দেব। শকুন উড়ে গেল আর আসার সময় মুখে এক টুকরো শুকরের মাংস নিয়ে এসে বাসায় রাখলো ।






বাচ্চা বলল–“বাবা, এটা তো শুকরের মাংস, আমি মানুষের মাংস খেতে চাই।”

বাপ বলল –অপেক্ষা কর বাবা!

শকুনটা আবার উড়ে গেল আর আসার সময় এক মরা গরুর মাংস নিয়ে এলো।






বাচ্চা বলল –“আরে এটা তো গরুর মাংস নিয়ে এসেছ, মানুষের মাংস কোথায়?

এবার শকুনটা দুটো টুকরো একসাথে মুখে নিয়ে উড়াল দিল আর শুকরের মাংসটি একটা মসজিদের পাশে আর গরুর মাংস একটা মন্দিরের পাশে ফেলে দিয়ে চলে এলো!

কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখানে শুরু হলো দাঙ্গা! কয়েকশ মানুষের লাশ পড়ে গেল! তখন গাছের ডাল থেকে নেমে বাপ-বেটা মিলে খুব তৃপ্তিতে মানুষের মাংস খেল।






বাচ্চাটা খেতে খেতে জিজ্ঞেস করছে– “বাবা, এত মানুষের মাংস এখানে কি করে এলো ?”

শকুন বললো — “এই মানুষ জাতটাই এরকম। সৃষ্টিকর্তা এদেরকে সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ বানিয়ে জন্ম দিয়েছেন, কিন্তু ধর্ম আর রাজনীতির নামে এদেরকে আমাদের থেকেও হিংস্র বানানো যেতে পারে! ”

বাচ্চা বললো তুমি ধর্মকে ব্যবহার করলে কেন, কতগুলো নীরিহ লোক মারা গেল , রাজনীতি করলেই পারতে!






বাবা হেসে উত্তর দিল, তাতেও নীরিহ লোকগুলোই মারা পড়তো! ধর্মটা আবেগের যায়গা তাই ফলাফলটাও তাৎক্ষণিক! তুমি আজই খেতে চেয়েছিলে! রাজনীতি টা কুটিল এবং জটিল, এটি শুরু হতে সময় নেয় কিন্তূ হলে আর থামেনা!

বাচ্চা বললো- “তোমার অনেক বুদ্ধি, বাবা”






শকুন — “আরেহ, ধুর! এটা তো আমি মানুষের কাছ থেকেই শিখছি, এদের একটা অংশ যখনই কোন অনিষ্ঠ করার চেষ্টায় ব্যর্থ হয় তখনই সহজ রাস্তা হিসেবে হয় ধর্মকে নয়তো রাজনীতিকে ব্যবহার করে!

সংগৃহীত

কষ্টার্জিত অৰ্থ

বাবাকে বলেছিলাম ১০ হাজার টাকা দাও কক্সবাজার বেড়াতে যাব!
মুচকি হেসেই বললেন কবে যাবি?
বললাম ৫ দিন পর!

বাবা বললেন কাল থেকে একটা কাজ থাকায় ৩ দিন বাইরে থাকবো, তুই এই ৩টা দিন দোকানে একটু সময় দিস, ফিরে এসেই তোকে টাকাটা দিচ্ছি!”

আমি তো মহা খুশি!

আমি ৩দিন দোকান দেখাশুনা করি। এই তিন দিনে আয় হয় ৮২০ টাকা। আর এই ৩দিনে যে পরিমাণ কষ্ট হয়েছে মনে হয় না জন্মের পর থেকে আমি আমার জীবনে এত কষ্ট করেছি…

রাতে নিজের রুমে বসে যখন ফোন টিপছি তখন বাবা এসে বললো,
-এই নে তোর ১০ হাজার টাকা।
আমি বাবার দিকে তাকিয়ে বললাম,
— কিসের ১০ হাজার টাকা?

বাবা অবাক হয়ে বললো,
– তুই না কক্সবাজার যাবি বন্ধুদের সাথে?
আমি বাবার চোখের দিকে তাকিয়ে বললাম,
–বাবা আমি আগে বুঝতাম না টাকা ইনকাম করতে কতটা কষ্ট হয় তোমার তাই তোমার কাছে এতকিছু আবদার করতাম। আমি এই ৩ দিনে খুব ভালো করেই বুঝতে পেরেছি টাকা ইনকাম করার কষ্টটা। যে আমি ৩ দিনে ৫ হাজার টাকাও ইনকাম করতে পারলাম না সেই আমি কি না ২ দিনের জন্য ১০ হাজার টাকা আবদার করি!! এত টাকা খরচ করা আমাদের মত নিম্নবিত্ত পরিবারের জন্য অপচয় ছাড়া কিছু নয় বাবা।

বাবা কাল থেকে আমি অবসর সময়ে দোকানে তোমাকে সহযোগীতা করব। বাবা কথা শুনে জড়িয়ে ধরে কাদঁলেন। বললেন তুই যে বাবার কষ্টটা বু্ঝতে পারছিস তাতেই আমি খুশি তুকে সহযোগীতা করতে হবে না। বাবা অনেক ভালবাসি তোমায়,,,,,♥♥

(সংগৃহীত)

একটা মেয়ে কোর্টে মামলা করেছে যে তার বয়ফ্রেন্ড তাকে ধর্ষণ করেছে। তারপর…..

একটা মেয়ে কোর্টে গেছে তার বয়ফ্রেন্ড এর নামে মামলা করতে। মামলাটা ছিলাে তার বয়ফ্রেন্ড তাকে ধর্ষণ করেছে।

জজ সাহেব সব কিছু জানতে চাইলে মেয়েটা তাদের রিলেশনের সব কিছু খুলে বলে, জজ সাহেব সব শুনে মেয়েটার হাতে একটা ৫ টাকার কয়েন দেয়, এবং বলে, ”এক সপ্তাহ পর যদি এই কয়েনটা তুমি আমার কাছে জমা দিতে পারাে তাহলে তুমি নির্দোষ। আর ছেলেটাকে বলল তুমি যদি কয়েনটা মেয়েটার কাছ থেকে আনতে পারাে তাহলে তুমি নির্দোষ। ”

এক সপ্তাহ পর মেয়েটা জজের কাছে কয়েনটা ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য যায় এবং কয়েনটা জজকে দিয়ে দেয়। জজ মেয়েটাকে প্রশ্ন করলাে, “ছেলেটা কি তােমার কাছ থেকে কয়েনটা নেওয়ার চেষ্টা করেনি?”

মেয়েটা বলল, “হ্যাঁ স্যার অনেক চেষ্টা করেছে আমাকে লাখ টাকার লােভ ও দেখিয়েছে, কিন্তু আমি দিই নি।”

জজ সাহেব বলল, “এইভাবে তুমি তােমার ইজ্জত টাও বাঁচাতে পারতে কিন্তু তুমি বাঁচাও নি। দুজনেই সেচ্ছায় রুম ডেট করেছাে এখন যখন ব্রেকাপ হয়েছে ছেলেটা ধর্ষক হয়ে গেছে ।”